Space for rent
Monday, 16 September, 2019, 7:20 PM
দক্ষিণ কোরিয়ার উলসানে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের বর্ষবরণ
Published : Thursday, 19 April, 2018 Time : 6:59 AM, Count: 264
A+ A- A
দক্ষিন কোরিয়ার উলসানে বসবাসরত প্রবাসী বাঙালিরা ১৪ এপ্রিল ২০১৮ (রোজ শনিবার) ইউনিভার্সিটি অফ উলসানের আন্তর্জাতিক হলে আয়োজন করেন নববর্ষের অনুষ্ঠান।  বাঙালি ঐতিহ্যে, সংস্কৃতির সাথে ভিনদেশীদের পরিচয় করিয়ে দেয়া ও নিজেদের বাঙালি চেতনায় নতুন বছরকে বরন করে নেওয়ার জন্য উলসান প্রবাসী বাঙালি কমিউনিটি এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন। দেশীয় পোশাক, দেশীয় খাবার এর সমারোহতে পহেলা বৈশাখের পুরা অনুষ্ঠানটি ছিলো বাঙালিয়ানার ছোঁয়া। 

১৪ এপ্রিল কোরিয়ান সময় বিকাল ৪ টায় শুরু হয় অনুষ্ঠান। ভেন্যু উলসান ইউনিভার্সিটি আন্তর্জাতিক হল। বিকাল চারটায় অনুষ্ঠান সূচীর সূচনা হয়। অনুষ্ঠানের আয়োজনে ছিলেন ড: শোয়েব, আরিফ, জুনায়েদ হাসান, নাসিম, মোহনা, মামুন, সুমন, শাহরিয়ার ও আরও অনেকে। তারা সবাই কোরিয়াতে মাস্টার্স, পিএইচডি ও অন্যান্য কোর্সে অধ্যায়নরত আছেন। সাথে উপস্থিত ছিলো কোরিয়াতে বাসরত তাদের পরিবারের সদস্যরা। বিকাল ৪.৩০ বৈশাখী সংগীত পরিবেশন করেন শিল্পীরা। কোরিয়ার মাটিতে " এসো হে বৈশাখ " গেয়ে নতুন বছরকে বরন করে নেয়া হয়।  ছবি তোলার পর্ব শেষে নানা দেশীয় খেলাধুুলায় অংশ নেন প্রবাসী বাঙালিরা। নানা ঘরোয়া খেলাধুলা আর গল্পগুজবে কিছুক্ষনেরর জন্য মনে হচ্ছিলো কোরিয়ার মাটিতে ছোট বাংলাদেশ। শিল্পীরা সবাই কৌতুক পরিবেশন, কবিতা আবৃত্তি, নাচ পরিবেশন করেন। নববর্ষে নানা বাঙালি খাবার সরবরাহ করা হয়। সাদা ভাত, নানা পদের ভর্তা, ডাল, মাছ আর ফিরনীর স্বাদে ছিলো দেশীয় পহেলা বৈশাখের ছোঁয়া। অনুষ্ঠানের অন্যতম আয়োজক আরিফ বলেন, "আমরা চেষ্টা করেছি প্রবাসী বাঙালিদের মাঝে ভাতৃত্বের বন্ধন গড়ে তুলতে। ভবিষ্যতে এ ধরনের অনুষ্ঠানে বিদেশীদেরও আমন্ত্রণ জানাবো। যাতে বাঙালি সাংস্কৃতি ভিনদেশীদের মাঝে তুলে ধরা যায়। কোরিয়ান প্রবাসী বাঙালিদের পাশে আমরা  সব সময় আছি।" 

কোরিয়ান প্রবাসী ফৌজিয়া আপু বলেন, " আমি চাই আমরা ও আমাদের বাচ্চারা বিদেশে বড় হলেও বাঙালি সাংস্কৃতি আয়ত্ব করুক।আয়োজকদের ধন্যবাদ। " অনুষ্ঠানে আসা নাসিম ও শাহরিয়ার ভাই  জানান তারা বাংলাদেশকে মিস করেন।  আর বাঙালিরা মিলে এক হওয়া একটু হলেও দেশে থাকা স্বজনদের ভুলিয়ে দেয়। জীবিকা, পড়াশোনার তাগিদে ভিনদেশে ছুটে আসা এই মানুষগুলা পহেলা বৈশাখের আনন্দ ভাগাভাগি করে নেন নিজেদের মাঝে। সবার পরনে ছিলো দেশীয় পোশাক শাড়ী, কামিজ,পান্জাবী।  সন্ধ্যা ৬ টায় অনুষ্ঠানটির ইতি টানেন আয়োজকরা। বেশ ভালো কিছু সময় কেটেছে সবার পুরা সময়ে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি


Editor in Chief: Omar Ali
356, East Rampura, Dhaka-1219, Bangladesh.
Cell: 01712479824, nrbnews24@gmail.com