Space for rent
Monday, 16 September, 2019, 7:20 PM
পর্যটন বিকাশে স্বপরিবারে টাঙ্গুয়ার হাওরে পরিকল্পনামন্ত্রী
Published : Tuesday, 9 July, 2019 Time : 12:06 AM, Count: 180
A+ A- A
সিলেট অফিসঃ হাওর অঞ্চলের পর্যটন বিকাশে স্বপরিবারে টাঙ্গুয়ার হাওর পরিদর্শন করেছেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান। সুনামগঞ্জ থেকে রোববার সকালের পর সরাসরি তাহিরপুরের বালিজুরী গাড়ি যোগে পৌছে পরিকল্পনামন্ত্রী তার সফরসঙ্গীদের নিয়ে জাদুকাঁটার নৌপথে নৌকা (বড় ট্রলার) যোগে সীমান্তনদী জাদুকাঁটা, বারেকটিলা, বৌলাই, পাটলাই, মাটিয়াইন, টাঙ্গুয়ার হাওর, টেকেরঘাট চুনাপাথর খনি প্রকল্প পরিদর্শন করেছেন।

পরিকল্পনামন্ত্রী দুপুরে দেশের প্রথম রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বাংলাদেশ রসায়ন শিল্প সংস্থা (বিসিআইসি)’র নিয়ন্ত্রিত সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের মেঘালয় সীমান্তঘেষা ট্যাকেরঘাট চুনপাথর খনি প্রকল্পে পৌছে প্রশাসন ও পারিবারিক সফরসঙ্গীদের নিয়ে ৭১’র মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজরিত ৫নং সেক্টরের ৪নং সাব সেক্টরে  ট্যাকেরঘাট প্রকল্পে শহীদ স্মৃতি স্তম্বে শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদন করেন। এরপর তিনি ঘুরে ঘুরে বীর উওম শহীদ সিরাজ লেক (নিলাদ্রী লেক). ট্যাকেরঘাট চুনাপাথর খনি প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন করেন।

পরিদর্শন শেষে ট্যাকেরঘাট অতিথি ভবন (নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট কার্যালয়) এ প্রতিবেদকের সাথে আলাপচারিতায় বলেন, সুনামগঞ্জ জেলা শহর থেকে সরাসরি পর্যটনবাহী চারচাকার গাড়ি বারেকটিলা, ট্যাকেরঘাট ও টাঙ্গুয়ার হাওরে পৌছবে। এ লক্ষ্যে সীমান্তনদী জাদুকাটার উপর এলজিইডির তত্বাবধানে দৃষ্টি নন্দন একটি সেতু ও বালিয়াঘাট পুরাতন ডাম্পের বাজারের মধ্যবর্তী পাটলাই নদীর উপর আরো একটি সেতুর নির্মাণ কাজ দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। ভ্রমণ পিপাসুদের সুবিধার কথা মাথায় রেখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পুর্ব প্রতিশ্রুত টাঙ্গুয়ার হাওরে অবকাঠামোগত উন্নয়নের পাশাপাশী বন্ধ হয়ে পড়ে থাকা টেকেরঘাট চুনাপাথর খনি প্রকল্প এলাকায় সরকারি জায়গা, বিভিন্ন স্থাপনা, খনি প্রকল্পের মুল্যবান যন্ত্রপাতি রক্ষণাবেক্ষণের মাধ্যমে এখানে পর্যটক বান্ধব অবকাঠামো নির্মাণ যেমন আবাসিক হোটেল, কটেজ, খাবার রেষ্টুরেন্ট তৈরী করা, শিশুদের বিনোদনের জন্য ট্যাকেরঘাট সহ বারেকটিলাতেও সব ধরণের অকাঠামোগত সুবিধা তৈরী করা হবে। এছাড়াও পরিকল্পনামন্ত্রী  টাঙ্গুয়ার হাওর, টেকেরঘাট, বারেকটিলা টিলা কেন্দ্রিক পর্যটন শিল্পের বিকাশে বেসরকারি পর্যায়ের উদ্যোক্তাদের এগিয়ে আসার আহবান জানান। 

রিপোর্টঃ হাবিব সরোয়ার আজাদ, সুনামগঞ্জ থেকে



Editor in Chief: Omar Ali
356, East Rampura, Dhaka-1219, Bangladesh.
Cell: 01712479824, nrbnews24@gmail.com