Space for rent
Monday, 16 September, 2019, 7:20 PM
বেনাপোলে ঢাকামুখী গাড়ির টিকিটের জন্য হাহাকার
Published : Saturday, 17 August, 2019 Time : 9:24 PM, Count: 124
A+ A- A
আসাদুজ্জামান আসাদ
> বিশেষ প্রতিনিধি, অগাস্ট ১৭
> এনআরবিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম


টিকিটের আকাল চলছে বেনাপোলে। ভারত ফেরত পাসপোর্ট যাত্রী ও পরিবারের সঙ্গে ঈদ পালন করতে এসে ঢাকা ফিরে যাওয়ার সময় মহাবিপাকে পড়ছেন সবাই। বাস, ট্রেন ও বিমানের টিকিট সহজলভ্য হতে আগামী সপ্তাহ লেগে যাবে বলছেন কর্তৃপক্ষ।

দ্বিগুণ চাহিদা বেড়েছে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত (এসি) বাসের। তবে ঈদে গ্রামে আসা মানুষের কর্মস্থলে ফিরে যেতে এসি তো দূরের কথা চেয়ার কোচেরও টিকেট পাচ্ছেন না।

স্থানীয়দের অনেকেই ঈদের আগেই শার্শা উপজেলার বেনাপোল চেকপোস্ট, বেনাপোল বাজার, নাভারন ও বাগআঁচড়া বাজারের বিভিন্ন পরিবহনের কাউন্টার থেকে ঢাকাগামী বাসের টিকিট সংগ্রহ করে রেখেছিলেন। তারা সহজেই কর্মস্থল ঢাকা, চট্রগ্রামে ফিরতে পারছেন। কিন্তু যারা আগাম টিকিট কাটেনি তারা পড়েছেন বিপাকে। সবচেয়ে সমস্যায় পড়েছেন ভারত ফেরত যাত্রীরা।

বেনাপোল থেকে বিভিন্ন রুটে প্রতিদিন শতাধিক বাস ছেড়ে যায় এমনটি জানিয়ে ঈগল পরিবহনের কাউন্টার ব্যবস্থাপক এম আর রহমান বলেন, আমাদের টিকেট অনলাইনে বিক্রি হয় তাই সব কাউন্টার আগাম টিকেট বিক্রি করে ফেলেছে। 

শনিবার পর্যন্ত বাসের কোনো টিকেট নেই। রোববারের কয়েকটি টিকিট ছিল তাও শেষ হবার পথে। আগামী ২০ অগাস্ট পর্যন্ত টিকিট ক্রাইসেস থাকছে। 

বেনাপোল রেল স্টেশনের স্টেশন মাস্টার সহিদুজ্জামান বলেন, বেনাপোল থেকে ঢাকাগামী 'বেনাপোল এক্সপ্রেসের' (ট্রেনের) ২২ অগাস্ট পর্যন্ত সকল টিকেট বিক্রি হয়ে গেছে। যেহেতু অনলাইনে টিকিট বিক্রি হয় তাই আমাদের কিছুই করার নেই।

এদিকে বেনাপোল চেকপোস্টের এয়ার টিকেট এজেন্ট 'টাইম ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজমের' প্রতিনিধি আবুল হাসান বলেন,সড়কপথে বেহাল অবস্থার কারনে আকাশপথে যাত্রীর চাপ বেড়েছে। এবার ঈদে এয়ারলাইন্সগুলো ফ্লাইট সংখ্যাও বাড়িয়েছে। এরপরেও ঈদের পরের দিন থেকে অধিকংশ প্লেনের টিকেট নেই। তবে আগামী সপ্তাহ থেকে স্বাভাবিক হবে বলেও জানান তিনি।

এদিকে বাসের টিকিটের দাম বাড়ানোর অভিযোগ করছেন যাত্রীরা। শার্শার ফজলুর রহমান বলেন, ঢাকাগামী  এসি বাসের টিকেটের দাম নেওয়া হচ্ছে ১৪৫০ টাকা অথচ আগে নেওয়া হতো ১৩০০ টাকা এবং ৫০০ টাকার নন এসি চেয়ার কোচের ভাড়া ৬০০ টাকা নেওয়া হচ্ছে।

এব্যাপারে অবশ্য ভিন্নমত পোষন করেছেন বেনাপোলের সোহাগ পরিবহনের কাউন্টার ব্যবস্থাপক শহিদুল ইসলাম। তিনি বলেন, এখন টিকিটের পুরো মূল্যই রাখা হচ্ছে আগে কিছুটা কমিয়ে রাখা হতো। বেনাপোল থেকে ঢাকামুখি যাত্রীর চাপ থাকলেও ঢাকা থেকে বাসগুলো খালি আসছে। তাই টিকিটের পুরো মূল্য নেওয়া হচ্ছে। 

নারায়নগঞ্জের আলিমুজ্জামান শনিবার সকালে ভারত থেকে ফিরেছেন। কিন্তু বেনাপোল থেকে নারায়নগঞ্জে যাওয়ার টিকেট এখনো পাননি। তবে রোববারের সকালের গাড়িতে টিকেট দিবে বলে একটি বাসের কাউন্টার ব্যবস্থাপক কথা দিয়েছেন বলে জানান আলিমুজ্জামান।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা করেন উপজেলার টেংরা গ্রামের সুমন হোসেন। তিন বন্ধু একসাথে বাড়ি এসেছিলেন ঈদ করতে। শনিবার টিকিট না পেয়ে তারা বাড়ি ফিরে যাচ্ছেন। সুমন বলেন, "আজ আর ঢাকায় ফিরা হলো না। কোথাও টিকিট পাইনি তাই সোমবারের টিকিট নিয়ে বাড়ি ফিরে যাচ্ছি।


Editor in Chief: Omar Ali
356, East Rampura, Dhaka-1219, Bangladesh.
Cell: 01712479824, nrbnews24@gmail.com